এইচএসসি বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তর

HSC Assignment Tuesday June 22, 2021

এইচএসসি বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তর

এইচএসসি বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তরঃ অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল হলো একাদ্বশ-দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের বাধ্যতামূলক বিষয়। প্রথম সপ্তাহে 1st weeks HSC BM Assignment Answer শিক্ষার্থীদের জন্য অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট দেওয়া হয়েছে। এইচ এস সি অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১ ও যতদ্রুত সম্ভবত নিচে দেওয়া হলো ।

বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১ | ১ম সপ্তাহ

সপ্তাহ শুরুর পুর্বে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজগুলাে আপলােড করা হবে এবং সপ্তাহ শেষে শিক্ষার্থীরা তাদের অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ শেষ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জমা দিয়ে (সরাসরিঅনলাইনে) নতুন অ্যাসাইনমেন্ট গ্রহণ করবে।

এইচএসসি বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১

অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের মাধ্যমে তাদের অর্জিত শিখনফল নির্ণয় করা হবে। পুনর্কিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী সপ্তাহ ভিত্তিক শিক্ষার্থী মূল্যায়ন বিবেচনায় নিয়ে অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ প্রণয়ন করা হয়েছে। এখানে, এইচএসসি বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তর নিয়ে নিচে আলোচনা করা হলো । অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তরসহ নিচে দেখুন ।

এইচএসসি বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট | ১ম সপ্তাহ

২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য ১ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট প্রকাশিত হয়েছে। এসাইনমেন্ট দেওয়া হয়েছে  বিষয়গুলো হলো বাংলা, পদার্থ বিজ্ঞান, পৌরনীতি ও সুশাসন, অর্থনীতি, যুক্তিবিদ্যা এবং হিসাব বিজ্ঞানবিএম শাখার জন্য  হিসাব বিজ্ঞান নীতি ও প্রয়োগ-১,অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল, ব্যবসা গনিত ও পরিসংখ্যান,কম্পিউটার অফিস এ্যাপ্লিকেশন, নিচে এ সপ্তাহের বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল বিষয়ের নির্ধারিত কাজের সমাধান নিচে যুক্ত করা হল –

HSC BM Economics and Commercial Geography Assignment Answer

১। অভাব অসীম সম্পদ সীমিত” সীমিত সম্পদ দিয়ে কীভাবে অসীম অভাব পুরণ করা যায় বলে তুমি মনে কর।
নির্দেশনাঃ

(ক) সম্পদ ও অভাব কী লিখবে।

উত্তর: সাধারণ অর্থে অভাব বলতে আর্থিক অনটনকে বোঝায়। কিন্তু অর্থনীতিতে অভাব শব্দটি বিশেষ অর্থে ব্যবহূত হয়। অর্থনীতিতে কোনো কিছু পাওয়া বা কোনো দ্রব্য বা সেবা পাওয়ার আকাঙ্ক্ষাকে অভাব বলে।

প্রতিনিয়তই মানুষ নানা অভাবের সম্মুখীন হচ্ছে। বস্তুতপক্ষে, মানুষের বেঁচে থাকার প্রয়োজনেই অভাবের উদ্ভব। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, পরিবার প্রতিপালন, শিক্ষা প্রভৃতি অভাবের সম্মুখীন হচ্ছে মানুষ।

আর অভাব পূরণের জন্য নানাবিধ কর্মপর্যায় গৃহীত হচ্ছে। এর ফলে সভ্যতারও অগ্রগতি হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে মানুষের সর্বপ্রকার অর্থনৈতিক কার্যাবলির মূলে রয়েছে অভাববোধ।

(খ) সীমিত সম্পদ দিয়ে কিভাবে অসীম অভাব পূরণ করা যায় তা লিখবে।

উত্তর: 

২। বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি অর্থনীতির উপর ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করেছে। কোভিড-১৯ আমাদের শিক্ষাক্ষেত্রে কী প্রভাব ফেলেছে তা আলােচনা কর।

নির্দেশনাঃ

(ক) কোভিড ১৯ কী লিখবে।

উত্তর: করোনা ভাইরাস সমগোত্রীয় ভাইরাসের একটি বড় পরিবার, যেগুলি সাধারণ সর্দিজ্বর থেকে শুরু করে মিডল ইস্ট রেসপিরেটরি সিন্ড্রোম (মার্স) ও সিভিয়ার অ্যাকিউট রেস্পিরেটরি সিন্ড্রোমের (সার্স) মতো মারাত্মক রোগ সৃষ্টি করে।

২০১৯ সালে চীনের উহান প্রদেশে একটি নতুন করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সনাক্ত করা হয়েছিল। এটি একটি নতুন করোনা ভাইরাস যা আগে কখনো মানুষের মধ্যে দেখা যায়নি।

এই কোর্সটিতে কোভিড-১৯ এবং নবআবির্ভূত শ্বাসযন্ত্রের ভাইরাসের সাধারণ পরিচিতি দেয়া হয়েছে এবং এটি জনস্বাস্থ্য কর্মী, ইনসিডেন্ট ম্যানেজার এবং জাতিসংঘ, আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং এনজিওগুলিতে কর্মরত কর্মীদের জন্য রচনা করা হয়েছে।

(খ) কোভিড ১৯ আমাদের শিক্ষাক্ষেত্রে কি প্রভাব ফেলেছে তা লিখবে।

উত্তর: পৃথিবী দুটি বিশ্বযুদ্ধ দেখেছে, কোভিড-১৯ মহামারীর আগে তিনটি মহামারীরও অসহায় সাক্ষী। এতে জীবন ধ্বংস হয়েছে, মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হয়েছে আর ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অর্থনীতি। কিন্তু আমরা কি এই জীবন আর অর্থনীতির ধ্বংসযজ্ঞ থেকে কোনো শিক্ষা নিয়েছি? আমরা কোনো শিক্ষাই নিতে পারিনি।

শিক্ষা নিলে বিশ্বকে আজ স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা ও অন্যান্য সেবামূলক খাতের এমন দুরবস্থা আর জনকল্যাণমুখী রাষ্ট্রব্যবস্থা না হয়ে কোটারি স্বার্থের রক্ষক হিসেবে গড়ে ওঠা রাষ্ট্র দেখতে হতো না। বিশ্বের ক্ষমতাধররা সমাজকল্যাণের বোধ ও মানবিক মূল্যবোধ হারিয়েছে এবং তাদের মানবতা ও মমত্ববোধের অনুভূতির দৈন্যও ফুটে উঠেছে ।

যদি আমরা ইতিহাসে দেখি, দেখতে পাব সমাজকর্মী, কবি-সাহিত্যিক, চিত্রশিল্পী আর বুদ্ধিজীবীরা অনাচার, অত্যাচার ও অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন। স্পেনের গৃহযুদ্ধের সময় ১৯৩৭ সালের ২৬ এপ্রিল গোর্য়েনিকা শহরটি আকাশ থেকে বৃষ্টির মতো বোমাবর্ষণে ধ্বংস হয়ে যায়।

১৯১১ সালে ইংরেজ শাসনামলে ভারতের অমৃতসরে গণহত্যা-বিরোধিতার প্রতিবাদে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ তার নাইটহুড উপাধি ফিরিয়ে দেন। বর্তমান সময়ে দার্শনিক, সাহিত্যিক ও সমাজকর্মীরা জা পল সাঁত্রের মতো ভাবেন না, তাদের মানবতা ও মমত্ববোধের অনুভূতি প্রকাশ করতে সংকোচ থাকে এবং অন্যায় ও অবিচারের প্রতিবাদও করতে চান না। আমরা ইতিহাসের সবচেয়ে খারাপ সময় অতিক্রম করছি।

তাই আজ কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলা করতে তারা হিমশিম খাচ্ছে। পরাশক্তি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই মৃতের সংখ্যা দেড় লাখ ছাড়িয়ে গেছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, অফিস আদালত ও দোকানপাট বন্ধ রাখতে তারা বাধ্য হচ্ছে।
প্রযুক্তির উন্নতির কারণে অনলাইনে পড়াশোনা ও কিছু ব্যবসা-বাণিজ্য ঘরে বসে করা সম্ভব হচ্ছে। তবে এ প্রসঙ্গে সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বিল গেটস বলেছিলেন, দূরবর্তী শিক্ষার জন্য প্রযুক্তির ব্যবহার শিক্ষার বৈষম্যকে আরও বাড়িয়ে তুলেছে।

শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা যেসব বড় সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে সেগুলো হচ্ছে-

১. দুর্বল বা বিঘ্ন ঘটায় এমন ইন্টারনেট সংযোগ

২. নিম্নমানের ডিভাইস

৩. শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেটের মূল্য পরিশোধের অতিরিক্ত বোঝা বহন।

বাংলাদেশে প্রাইমারি স্কুলে ২ কোটি ছাত্র, ১ কোটির অধিক সেকেন্ডারি স্কুলে, উচ্চ সেকেন্ডারি কলেজে প্রায় ৪০ লাখ এবং মাদ্রাসায় ৩৫ লাখ ছাত্র পড়াশোনা করে। এসব ছাত্রের অনেকের ল্যাপটপ বা স্মার্টফোন বা আইফোন অথবা কোনোটাই নেই। কাজেই সরকারের সদিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও এসব ছাত্রের অনলাইনে শিক্ষাদান সম্ভবপর হচ্ছে না। ইনফ্লুয়েঞ্জা মহামারী দুই বছর স্থায়ী ছিল।

বিশ্বজুড়ে নতুন স্নাতক ডিগ্রি, ডিপ্লোমা এবং পেশাদার ডিগ্রিপ্রাপ্ত যুবকরা মহামারীটি বিশ্ব অর্থনীতিকে মন্দার দিকে ঠেলে দেয়ার কারণে চাকরির বাজারে প্রবেশের জন্য লড়াই করছে। একটি বৈরী চাকরির বাজার শিক্ষাক্ষেত্রে যে বিঘ্ন ঘটেছে তার সঙ্গে মিলিত হয়েছে, যা ১০০ কোটিরও বেশি শিক্ষার্থীকে প্রভাবিত করেছে।এর ফলে শিক্ষিত তরুণদের সম্ভাবনার দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতি করতে পারে। কোভিড-১৯ প্রথম চাকরিপ্রাপ্ত যুবকদের চাকরিতে উন্নতি করার আশা ব্যর্থ করে দিয়েছে। আস্তে আস্তে এসব সমস্যা একটি বড় সামাজিক অশান্তির রূপ নিতে পারে।

কোভিড-১৯ থেকে শিক্ষা নিয়ে আমাদের স্বাস্থ্যব্যবস্থায়, শিক্ষা পদ্ধতিতে এবং ব্যবসার ধরনে পরিবর্তন আনতে হবে। সর্বোপরি জনকল্যাণমুখী রাষ্ট্রব্যবস্থাই হবে আগামীর দুর্যোগ মোকাবেলার কার্যকর পন্থা। আশা করি বিশ্বের রাজনৈতিক নেতারা কোভিড-১৯ থেকে এ শিক্ষাই নেবেন।

বি এম- ০৬ (ক)
খ বিভাগ- বাণিজ্যিক ভূগােল

১। আবহাওয়া ও জলবায়ু দ্বারা কৃষি প্রভাবিত হয়। “কৃষির উন্ননে প্রযুক্তির ব্যবহার অপরিহার্য” বর্তমানে কৃষির উন্নয়নে
কোন কোন প্রযুক্তি ব্যবহারের পক্ষে তুমি সুপারিশ করবে।

নির্দেশনাঃ

(ক) আবহাওয়া ও জলবায়ু কী লিখবে।

উত্তর:

আবহাওয়াঃ তোমরা দেখ, কখনও রোদ, কখন বৃষ্টি। কখনও বা গরম , কখন শীত। আবার কখন মেঘ, কখনও বা কুয়াশা। বায়ু কখনও বা খুব জোরে প্রবাহিত হয়। বায়ুকে কখন ভেজা মনে হয় ,কখন শুষ্ক মনে হয়। কোন জায়গার রোদ, বৃষ্টি,তাপমাত্রা,বায়ুপ্রবাহ এ অবস্থাগুলো মিলে হয় আবহাওয়া। এই অবস্থাগুলো অল্প সময়ের মধ্যে পাল্টে যেতে পারে। আবার একই সময়ে দুটো কাছাকাছি জায়গার আবহাওয়া ভিন্ন হতে পারে।

জলবায়ুঃ আবহাওয়া ও জলবায়ুর মধ্যে ভিন্ন সম্পর্ক থাকলেও এরা এক নয়। আবহাওয়া হল কোন জায়গার অল্প সময়ের অবস্থা। জলবায়ু হল কোন জায়গার অনেক বছরের আবহাওয়ার একটি সামগ্রিক অবস্থা। যেমন আমরা দেখি বাংলাদেশে তিনমাসের মত সময়ব্যাপী শীত পড়ে। বছরের বাকী সময়টা গরম পড়ে। তিনমাস বৃষ্টি হয়। বায়ু ভেজা বা আর্দ্র থাকে। বিশ বা তিরিশ বছর ধরে বাংলাদেশের সামগ্রিক আবহাওয়া অর্থাৎ জলবায়ু মোটামোটি একই রকম দেখা যায়। বাংলাদেশের জলবায়ু তাই উষ্ণ ও আর্দ্র।

(খ) কৃষি প্রযুক্তি কী লিখবে।

উত্তর: যে যন্ত্রগুলি দিয়ে কৃষিকাজ সম্পাদনা করা হয় তা ই কৃষি প্রযুক্তি|যেমন টাক্টর,মাড়াই করা মেশিন,সেচ যন্ত্র ইত্যাদি কৃষি প্রযুক্তি|

(গ) বিভিন্ন রকম কৃষি প্রযুক্তি উল্লেখসহ ইহার ব্যবহার লিখবে।

উত্তর:

HSC BM Assignment Answer 2021

অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১

বি এম- ০৬ (খ)

ক বিভাগ অর্থনীতি

১। বাংলাদেশের জনগণের মাথাপিছু আয় স্বল্প। বাংলাদেশের জনগণের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধির জন্য কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করা যায় বলে তুমি মনে কর।

(ক) মাথাপিছু আয় কী লিখবে।

উত্তর: “মাথাপিছু” শব্দটির অর্থ প্রতি ব্যক্তি। মাথাপিছু আয় বলতে বুঝায় কোনও দেশ বা ভৌগলিক অঞ্চলে ব্যক্তি প্রতি আয় করা পরিমাণের একটি পরিমাপ।

মাথাপিছু আয়কে আপনি এভাবেও বলতে পারেন; একটি নির্দিষ্ট সময়ে একটি দেশের মোট জনসংখ্যার গড় আয়। মাথাপিছু আয় নির্ণয় করা হয একটি দেশের প্রতি ব্যক্তি গড় আয় নির্ধারণ করতে এবং জনগণের জীবনযাত্রার মান নির্ণয় করতে ব্যবহার করা হয়।

“মাথাপিছু” শব্দটির অর্থ প্রতি ব্যক্তি। মাথাপিছু আয় বলতে বুঝায় কোনও দেশ বা ভৌগলিক অঞ্চলে ব্যক্তি প্রতি আয় করা পরিমাণের একটি পরিমাপ। মাথাপিছু আয়কে আপনি এভাবেও বলতে পারেন; একটি নির্দিষ্ট সময়ে একটি দেশের মোট জনসংখ্যার গড়…

(খ) মাথাপিছু আয় বৃদ্ধির উপায় লিখবে।

উত্তর:

১. উচ্চ জাতীয় ও মাথাপিছু আয়: উন্নত দেশগুলোর জাতীয় ও মাথাপিছু আয়ের পরিমাণ খুব বেশি। সুইজারল্যান্ড, মার্কিন
যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, ইংল্যান্ড প্রভৃতি উন্নত দেশের মাথাপিছু আয় গড়ে প্রায় ৩০,০০০ ডলারের বেশি।

২. উচ্চ জীবনযাত্রার মান: মাথাপিছু আয় বেশি বলে উন্নত দেশের জনগনের জীবনযাত্রার মানও খুবই উন্নত। ফলে এ
সমস্ত দেশের জনসাধারণ জীবনধারণের আধুনিক সকল সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারে।

৩. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রসার: উন্নত দেশে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিদ্যার ব্যাপক প্রসার ঘটেছে এবং জীবনের সকল ক্ষেত্রে
আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সফল প্রয়োগ সম্ভব হয়েছে।

৪. মূলধনের প্রাচুয: উন্নত দেশে জনসাধারণের মাথাপিছু আয়বেশি। ফলে এ সমস্ত দেশে সঞ্চয়, মূলধন ও বিনিয়োগের
পরিমানও অধিক।

৫. প্রাকৃতিক সম্পদের সর্বাত্মক ব্যবহার: উন্নত দেশসমূহ প্রাকৃতিক সম্পদে সমৃদ্ধ এবং এ সব দেশে অধিক মূলধন ও দক্ষ
জনশক্তি থাকায় প্রাকৃতিক ও মানবিক সম্পদের সুষ্ঠুভাবে পূর্ণ ব্যবহার হয়ে থাকে।

৬. উন্নত পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থা: পরিবহণ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা অর্থনৈতিক উন্নয়নের পূর্বশর্ত। উন্নত দেশের
পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থা খুবই উন্নত।

৭. লেনদেনের ভারসাম্য: বৈদেশিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে উন্নত দেশের বাণিজ্যিক ও লেনদেনের ভারসাম্য সর্বদা অনুকূলে
থাকে। এ সব দেশে বেশির ভাগ প্রয়োজনীয় দ্রব্য দেশের ভিতরেই উৎপাদন করা হয় এবং অধিকাংশ দ্রব্য বাণিজ্যিক
ভিত্তিতে উৎপাদিত হয়। সে জন্য উন্নত দেশগুলো খুব কম দ্রব্য আমাদানি করে কিন্তু অধিক পরিমাণ দ্রব্য রপ্তানি করে
থাকে।

অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এসাইনমেন্ট উত্তর

বি এম- ০৬ (খ)
ক বিভাগ অর্থনীতি

২। সরকার বিভিন্ন উৎস হতে আয় করে এবং বিভিন্ন খাতে ব্যয় করে। শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়ে বর্তমান সরকারের পদক্ষেপ গুলি উল্লেখ কর।

নির্দেশনাঃ

(ক) সরকারি অর্থব্যবস্থা কী লিখবে।

উত্তর: সরকারি অর্থ ব্যবস্থা হলো অর্থনীতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শাখা। সাধারণভাবে সরকারি অর্থ ব্যবস্থা বলতে রাষ্ট্রের আয় ও ব্যয় সংক্রান্ত নীতি ও পদ্ধতিকে বুঝায়। অর্থনীতির এ শাখায় রাষ্ট্রের সব ধরণের আয়-ব্যয়, ঋণ ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত সমস্যা ও এদের সমাধানের বিষয় অন্তর্ভুক্ত থাকে।

(খ) সরকারি আয়ের উৎস এবং শিক্ষা ও স্বাস্থযখাতে সরকারের ভমিকা উল্লেখ লিখবে।

উত্তর: বাংলাদেশ সরকার জণকল্যাণ সাধন, প্রশাসন পরিচালনা ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করে। এ ব্যয় নির্বাহের জন্য সরকারকে প্রচুর পরিমাণ অর্থ আয় করতে হয়। বাংলাদেশ সরকারে আয়ের উৎসগুলো দু’ভাগে ভাগ করা যায়।

ক) কর রাজস্ব

খ) কর বহির্ভূত রাজস্ব

বি এম- ০৬ (খ)
খ বিভাগ- বাণিজ্যিক ভূগােল

১। বর্তমান ভুমিকম্প একটি অতিপরিচিত প্রাকৃতিক দুর্যোগ। ভূমিকম্পের ক্ষয়-ক্ষতি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য তুমি কী ধরণের পদক্ষেপ গ্রহণ করবে?

নির্দেশনাঃ

(ক) ভূমিকম্প কী লিখবে।

উত্তর: ভূমিকম্প হচ্ছে ভূমির কম্পন। ভূ অভ্যন্তরে যখন একটি শিলা অন্য একটি শিলার উপরে উঠে আসে তখন ভূমি কম্পন হয়।পৃথিবীপৃষ্ঠের অংশবিশেষের হঠাৎ অবস্থান পরিবর্তন বা আন্দোলনই ভূমিকম্পন। হঠাৎ যদি ঘরের কোনো জিনিস দুলতে শুরু করে—যেমন, দেয়ালঘড়ি, টাঙানো ছবি বা খাটসহ অন্য যেকোন আসবাব—বুঝতে হবে ভূমিকম্প হচ্ছে। সহজ কথায় পৃথিবীর কেঁপে ওঠাই ভূমিকম্প।

সাধারণত তিন ধরনের ভূমিকম্প হয়ে থাকে—প্রচণ্ড, মাঝারি ও মৃদু। আবার উৎসের গভীরতা অনুসারে ভূমিকম্পকে তিন ভাগে ভাগ করা যায়—অগভীর, মধ্যবর্তী ও গভীর ভূমিকম্প।

(খ) ভূমিকম্পে কী ধরণের ক্ষয়-ক্ষতি হয় তা উল্লেখসহ ক্ষয়-ক্ষতি রােধে কী কী করণীয় লিখবে।

উত্তর: ভূমিকম্পের পূর্বাভাস বা প্রেডিকশন খুবই জটিল। আমরা কোনো নির্দিষ্ট ভূমিকম্পকে সরাসরি নির্ণয় করতে পারি না, কিন্তু মাইক্রোসিসমিসিটি গবেষণা, ফোকাল ম্যাকানিজম গবেষণার মাধ্যমে সম্ভাব্য পূর্বাভাস এবং ঝুঁকিপূর্ণ স্থান, হাইসিসমিসিটি, লোসিসমিসিটি নির্ণয় করতে পারি, যা জনসচেতনতা বৃদ্ধিসহ জীবন ও সম্পদের ক্ষয়-ক্ষতি রোধে অত্যন্ত সহায়ক। ভূমিকম্পবিষয়ক দুর্যোগ মোকাবিলার জন্য সরকারের একটি সুস্পষ্ট কর্মপরিকল্পনা জরুরি প্রয়োজন।

করণীয়: ভূমিকম্পজনিত দুর্যোগ থেকে জীবন ও সম্পদ রক্ষার প্রয়োজনে সম্ভাব্য ভূমিকম্প মোকাবিলায় সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানকে নিচের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া একান্ত প্রয়োজন।

১. জনসচেতনতা বৃদ্ধি

২. ভূমিকম্প মোকাবিলায় পূর্বপ্রস্তুতি

৩. ভূমিকম্প-পরবর্তী উদ্ধার, ত্রাণ ও পুনর্গঠন কর্মসূচি ইত্যাদি

ভূমিকম্পে দালানকোঠার নিচে পড়ে অসংখ্য মানুষের মৃত্যু হয়। সম্ভাব্য ভূমিকম্পের প্রস্তুতি ও ক্ষয়ক্ষতি প্রশমনে জনসচেতনতা বৃদ্ধি একান্ত প্রয়োজন। ভূমিকম্পে জনসাধারণের করণীয় সম্পর্কে যেমন: ভূমিকম্পের আগে, ভূমিকম্পের সময় ও পরে কী করা উচিত, সে বিষয়ে অবহিত করা। তা ছাড়া ভূমিকম্প কী, কেন হয় ও এর প্রভাব; পরিকল্পিতভাবে বাড়িঘর নির্মাণ না করলে, প্রয়োজনীয় বিল্ডিং কোড মেনে না চললে কী ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে, সে বিষয়ে সচেতন করা।

নিচে ভূমিকম্পের আগে, পরে ও ভূ-কম্পনের সময় সাধারণের করণীয় সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

ভূমিকম্পের আগে

(ক) বিদ্যুৎ ও গ্যাসলাইন বন্ধ করার নিয়মকানুন পরিবারের সবার জেনে রাখা।

(খ) ঘরের ওপরের তাকে ভারী জিনিসপত্র না রাখা, পরিবারের সব সদস্যের জন্য হেলমেট
রাখা।

(গ) পরিকল্পিত বাড়িঘর নির্মাণের জন্য বিল্ডিং কোড মেনে চলা

(ঘ) ভবনের উচ্চতা ও লোডের হিসাব অনুযায়ী শক্ত ভিত দেওয়া,

(ঙ) রেইন ফোর্সড কংক্রিট ব্যবহার,

(চ) পাশের বাড়ি থেকে নিরাপদ দূরত্বে বাড়ি নির্মাণ,

(ছ) গ্যাস ও বিদ্যুৎ লাইন নিরাপদভাবে স্থাপন করা

(জ) গর্ত ও নরম মাটিতে ভবন নির্মাণ না করা

এইচএসসি ১ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট বিষয় যা আছে

বিষয়

এইচএসসি ১ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক

বাংলা ১ম পত্র উত্তর লিংক
পৌরনীতি ও সুশাসন ১ম পত্র উত্তর লিংক
পদার্থ বিজ্ঞান ১ম পত্র উত্তর লিংক
অর্থনীতি  ১ম পত্র উত্তর লিংক
হিসাববিজ্ঞান ১ম পত্র উত্তর লিংক
যুক্তিবিদ্যা ১ম পত্র উত্তর লিংক

 

এই ৬ টি বিষয়ের উপর ১ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সাজানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে । বিএম শাখার এসাইনমেন্ট উত্তরসহ এই সব বিষয়ের ১০০% সঠিক সমাধান পেতে আমাদের পেজটিতে চোখ রাখুন । প্রতি সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর সবার আগে এখানে পোস্ট করা হয়ে থাকে ।

এইচএসসি বিএম এসাইনমেন্ট উত্তর

বিষয়

এইচএসসি বিএম এসাইনমেন্ট উত্তর লিংক

হিসাব বিজ্ঞান নীতি ও প্রয়োগ-১ এইচএসসি বিএম হিসাব বিজ্ঞান নীতি ও প্রয়োগ-১ উত্তর
অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল এইচএসসি বিএম অর্থনীতি ও বাণিজ্যিক ভূগোল অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর
ব্যবসা গনিত ও পরিসংখ্যান এইচএসসি বিএম ব্যবসা গনিত ও পরিসংখ্যান অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর
কম্পিউটার অফিস এ্যাপ্লিকেশন এইচএসসি বিএম কম্পিউটার অফিস এ্যাপ্লিকেশন অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর

Leave a Reply

Apply For jobs 24

Never miss a job opportunity

Get Apply For Jobs 24 on your phone
  • Access 1000s of jobs, on the go
  • Filtering to find the jobs that suit you
  • Apply directly and in real time
  • Applyforjobs24.Com Is A Fast Growing Bangladeshi Job Portal That Helps Jobseekers From All Sectors And Experience Levels, Such As Govt. And NGO. Jobs, Multi-National Jobs, Part-Time Jobs Part-Time Jobs (Especially Meant For..

    Read More About
    FOLLOW
    Download Mobile App