এইচএসসি ২০২২ গৃহকর্ম ও ব্যবস্থাপনা এসাইনমেন্ট উত্তর ৮ম সপ্তাহ

Shikha Songbad Thursday September 9, 2021

এইচএসসি ২০২২ গৃহকর্ম ও ব্যবস্থাপনা এসাইনমেন্ট উত্তর ৮ম সপ্তাহ: এইচএসসি এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২ – ৮ম সপ্তাহ – HSC Assignment For Examine 2022. মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক ০৫/০৯/২০২১ ইং তারিখে প্রকাশিত ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য প্রণীত ৮ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রদান নিচে ৮ম সপ্তাহের এ্যাসাইনমেন্ট এর বিষয় ভিত্তিক প্রশ্ন ও উত্তর/সমাধান দেখুন:

এইচএসসি এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২ – ৮ম সপ্তাহ – HSC Assignment

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক ৭ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট নির্দেশনা

উপযুক্ত বিষয় ও সূত্রের প্রেক্ষিতে জানানাে যাচ্ছে যে, চলমান কোভিড-১৯ অতিমারির কারণে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মােতাবেক পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের শিখন কার্যক্রমে পুরােপুরি সম্পৃক্তকরণ ও ধারাবাহিক মূল্যায়নের আওতায় আনয়নের জন্য ৮ম সপ্তাহের বাংলা, সমাজকর্ম,সমাজবিজ্ঞান,জীববিজ্ঞান,গৃহকর্ম ব্যবস্থাপনা,ভূগোল,ফিন্যান্স ব্যাংকিং ও বীমা ।

বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়ন রুব্রিক্সসহ প্রণয়ন করা হয়েছে; যা এতদসঙ্গে প্রেরণ করা হলাে। ৮ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম ০৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রি. সােমবার থেকে শুরু হবে
কোভিড-১৯ অতিমারির কারণে সরকার প্রদত্ত স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে পালনপূর্বক বর্ণিত বিষয়ে প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরােধ করা হলাে।

HSC 8th Week Home Work Assignment Answer 2022

এইচএসসি এসাইনমেন্ট৮ম সপ্তাহ
বিষয়গৃহকর্ম ও ব্যবস্থাপনা অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর
প্রকাশের তারিখ০৫-০৯-২০২১
শ্রেণিউচ্চ মাধ্যমিক/HSC
অধিদপ্তরমাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর
ওয়েবসাইটwww.dshe.gov.bd
অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম শুরু০৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রি. সােমবার থেকে শুরু হবে
এইচ এস সি ৮ম সপ্তাহ এসাইনমেন্ট উত্তর
HSC-2022-Assignment
HSC Assignment

২০২২ সালের এইচএসসি সকল এসাইনমেন্ট ৮ম সপ্তাহ

বর্তমানে দীর্ঘ সময় যাবত স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় বাংলাদেশ শিক্ষা বোর্ড অ্যাসাইনমেন্ট প্রক্রিয়া চালু করেছে। তাই এইচএসসি শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান তৈরি করে তাদের স্কুলে জমা দিতে হবে। আজকের এই পোস্টের তুলে ধরা হয়েছে ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২। নিচে থেকে দেখে নিন এইচএসসি সকল এসাইনমেন্ট সমাধান।

অনেকেই আছেন যারা এখনো এইচএসসি ৮ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর খুঁজে পাননি। তাদের জন্য প্রতিটি প্রশ্নের সঠিক উত্তর তুলে ধরা হয়েছে আজকের এই পোস্টে। এখান থেকে আপনি অতি দ্রুত আপনার এইচএসসি ৮ম সপ্তাহ এসাইনমেন্ট তৈরি করতে পারবেন। তাই নিচে থেকে দেখে নিন এইচএসসি ২০২২ এসাইনমেন্ট উত্তর।

HSC-2022-Assignment-Week8
HSC-2022-8 Week-assignment-page-002

বাংলাদেশ শিক্ষা বোর্ড এইচএসসি ২০২২ পরীক্ষার্থীদের জন্য আবারও শুরু করলো অ্যাসাইনমেন্ট প্রক্রিয়া। ৮ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রদানের তারিখ ০৫/০৯/ ২০২১, স্কুল কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের হাতে এইচএসসি ২০২২ পরীক্ষার্থীদের ৮ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট তুলে দিবে। পরবর্তী এক সপ্তাহের ভিতরে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান জমা দিতে হবে। তাই আমরা আপনাদের অতি দ্রুত এইচএসসি ২০২২ এর ৮ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান পেতে সাহায্য করবো।

এইচএসসি ২০২২ গৃহকর্ম ও ব্যবস্থাপনা এসাইনমেন্ট উত্তর ৮ম সপ্তাহ

গৃহকর্ম ও ব্যবস্থাপনা

গৃহকর্ম ও ব্যবস্থাপনা ২য় পত্র এসাইনমেন্ট উত্তর ৮ম সপ্তাহ

অ্যাসাইনমেন্ট: সামাজিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিবারের গুরুত্ব ব্যাখ্যা।

বিষয়বস্তু

১. পরিবারের ধারণা ও বৈশিষ্ট্য ব্যাখ্যা করতে পারবে
২. সামাজিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিজ পরিবারের কাজ বর্ণনা করতে পারবে
৩. পরিবারের সদস্য হিসেবে ব্যক্তির ভূমিকা বর্ণনা করতে পারবে

নির্দেশনা

ক. পরিবারের ধারণা ও বিভিন্ন প্রকার পরিবারের বৈশিষ্ট্য ব্যাখ্যা
খ. সামাজিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিজ পরিবারের কাজ বর্ণনা
গ. পরিবারের সদস্য হিসেবে ব্যক্তির ভূমিকা বর্ণনা
ঘ. পরিবারের সদস্যদের পারস্পরিক সম্পর্কের গুরুত্ব মূল্যায়ন করে সামাজিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিবারের গুরুত্ব ব্যাখ্যা

এইচএসসি গৃহকর্ম ও ব্যবস্থাপনা এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২

পরিবারের ধারণা ও বিভিন্ন প্রকার পরিবারের বৈশিষ্ট্যঃ

পরিবার হলো একটি মৌলিক সামাজিক প্রতিষ্ঠান। মানুষ হিসেবে আমরা প্রত্যেকেই কোনো না কোনো পরিবারের সদস্য। পরিবারের মধ্যেই আমরা জন্মগ্রহণ করি, বড় হই, নিজেই পরিবার গঠন করি, কর্মজীবনে অবসরে পরিবারের মাঝে ফিরে আসি এবং পরিবারেই একজন সদস্যের মৃত্যু ঘটে।

এজন্যই রবার্ট ফ্রস্ট বলেছেন, “ পরিবার সেই স্থান, যেখানে আপনি যখন যেতে চাইবেন তখন পরিবার আপনাকে গ্রহণ করবে ”।পরিবর্তনশীল আধুনিক সমাজে স্বামী-স্ত্রী উভয়েই নানারকম অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িত হওয়ার ফলে পরিবারের গড়ন, বৈশিষ্ট্য এবং এর ভূমিকা ও কার্যাবলীতে এসেছে পরিবর্তন। পরিবারের গড়ন, বৈশিষ্ট্য এবং এর ভূমিকা ও কার্যাবলীতে পরিবর্তন এলেও পরিবার তার নিজস্ব গুরুত্ব বজায় রেখেছে এবং সময়ের সঙ্গে খাপ-খাইয়ে পরিবার অদ্যাবধি তার ভূমিকা পালন করে চলছে। পরিবার আমাদের নানাবিধ প্রয়োজন মিটিয়েই টিকে আছে এবং হয়ত টিকে থাকবে।

উপরের সংজ্ঞাগুলো বিশ্লেষণ করলে পরিবারের নিম্নোক্ত বৈশিষ্ট্য লক্ষ্য করা যায়। যেমন:

১) পরিবারের সদস্যরা সাধারণত রক্ত, বৈবাহিক বা দত্তকসূত্রে সম্পর্কযুক্ত;

২) পরিবার একটি স্থায়ী সংগঠন, কারণ এর সদস্যরা দীর্ঘদিন একত্রে বসবাস করে;

৩) পরিবার হলো উৎপাদন ও ভোগের একটি মৌলিক একক। কেননা এর সক্ষম সদস্যরা উৎপাদন করে এবং সবাই মিলে ভোগ করে;

৪) পরিবারের দায়িত্বশীল সদস্যরা অপ্রাপ্ত বয়স্ক এবং বেশি বয়স্ক সদস্যদের ভরণ-পোষণসহ অন্যান্য দায়-দায়িত্ব বহন করে ।

সামাজিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিবারের কাজঃ

সামাজিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিবারের অনেক কার্যক্রম রয়েছে নিম্নে তা উল্লেখ করা হলোঃ

(১) জৈবিক কাজ

পরিবারের অন্যতম কাজ সন্তান-সন্ততির জন্মদান এবং লালন-পালন। এই কাজটি পরিবারের ভিত্তি। কেননা যৌনতা, নারী-পুরুষের একে অপরের প্রতি আকর্ষণ ও সন্তান-বাৎসল্যের কারণেই মানুষ পরিবার গঠন করে। অনেক উন্নত দেশে শিশু ভ‚মিষ্ঠ হওয়া থেকে লালন-পালনের নানা দায়িত্ব শিশু-সদন বা শিশুমঙ্গল প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালগুলো পালন করে থাকে। তবে পরিবারের মধ্যে যে আদর-স্নেহ ও মায়া-মমতায় শিশু বিকশিত হয় তার বিকল্প কিছুই সৃষ্টি করা সম্ভব নয়।

(২) শিক্ষামূলক কাজ

পরিবারকে সমাজ জীবনের শাশ্বত বিদ্যালয় বলা হয়। শিশুরা প্রথম শিক্ষা, বর্ণ পরিচয় ও যোগ-বিয়োগ পরিবারেই শিখে। এমনকি বড় হয়ে স্কুলে যে শিক্ষা দেওয়া হয় তাও পরিবারের নিয়ন্ত্রণে পূর্ণতা পায়। যেমন− পরিবারে মাতাপিতার সাহায্য ও সহযোগিতায় স্কুলের শিক্ষার ভিত্তি মজবুত হয়। শুধু তাই নয়− শিশুরা ধর্মীয় শিক্ষা, আদব-কায়দা, শিষ্টাচার, বড়দের প্রতি সম্মান ও ছোটদেরকে ভালবাসার শিক্ষা পরিবার থেকে লাভ করে। তাই শিশুশিক্ষার জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়, কিন্ডারগার্ডেন প্রভৃতি থাকলেও নৈতিক মূল্যবোধ ও মানবতাবোধের শিক্ষা পরিবারের মত অন্য কোন প্রতিষ্ঠান দিতে পারে না।

(৩) অর্থনৈতিক কাজ

অতীতে পরিবারের মধ্যেই অর্থনৈতিক কার্যাবলী সম্পাদিত হত। শিকার, মৎস্য চাষ ও সংগ্রহ, কুটির শিল্প প্রভৃতি কাজ পরিবারের সদস্যরা সম্পাদন করে জীবন ধারণ করত। তখন তাদের চাহিদা কম ছিল বলে পরিবার সদস্যদের সকল চাহিদা প‚রণ করতে পারত। কিন্তু বর্তমানকালে অর্থনৈতিক চাহিদা বৃদ্ধি ও আয়ের ক্ষেত্র সম্প্রসারণের ফলে পরিবারের সদস্যগণ অফিসআদালত, কলকারখানা ও নানাবিধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে আয় করে থাকে। তবে আজকাল আবার পরিবারমুখী আয়ের পথ উন্মোচিত হয়েছে। হাঁস–মুরগী পালন, মাছ চাষ, ফল ও ফুলের বাগান তৈরি, বাঁশ ও কাঠের কাজ, সেলাই ও বুনন কাজ করে পরিবারের সদস্যগণ আয় বাড়িয়ে সুখ-শান্তি ও স্বচ্ছলতা বৃদ্ধি করছেন। পরিবারের সদস্যগণের বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে অর্জিত আয় পরিবারের মধ্যে খরচ করে পরিবার গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক কাজ করে।

(৪) মনস্তাত্ত্বিক কাজ

স্নেহ, মায়া-মমতা, ভালবাসা ও আদর-আপনি শিশুরা লালিত-পালিত হয়। পিতামাতার সেনেহা প্রতিপালিত শিশু সমাজে চলার পথে উদারতা, সহনশীলতা, দয়ামায়া প্রভৃতি মানবিক গুণাবলী দ্বারা পরিচালিত হয়। এর ফলে সুন্দর ও সুশৃংখল সমাজ গড়ে উঠে। পরিবারের এ কাজের কোন বিকল্প সৃষ্টি করা সম্ভব নয়।

পরিবারের সদস্য হিসেবে ব্যক্তির ভূমিকাঃ

পরিবারের সদস্য হিসেবে ব্যক্তির যে যে ভূমিকা পালন করা উচিত তার মূল উপাদান সমূহ নিচে বর্ণনা করা হলোঃ-

(১) নীতি ও ঔচিত্যবোধ আলোকে বিচার করা


প্রত্যেক সমাজে কি করা উচিত বা কি করা উচিত নয় এ ব্যাপারে সাধারণ ঐকমত্য থাকে। ধর্ম থেকে বা সমাজের গুরুজনদের নিকট থেকে এগুলো মানুষ অর্জন করে। এগুলোকেই মানুষ সামাজিক নৈতিকতা হিসেবে গ্রহণ করে। যেমন− সত্য কথা বলা ঔচিত্যবোধের সহিত জড়িত। এর বিপরীতে মিথ্যা কথা বলাকে মানুষ ঔচিত্যবোধের বিপরীত মনে করে। মিথ্যাবাদী তাই সমাজে ঘৃণিত ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত হয়।

(২) সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করা


সামাজিক ন্যায়বিচার গণতন্ত্রের বিকাশের ফল। সামাজিক ন্যায়বিচার বলতে বুঝায় ধনী-গরিব, শিক্ষিত-অশিক্ষিত, অফিসের বড় কর্মকর্তা থেকে ছোট কর্মচারী, জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের কাজ, আচরণ ও ন্যায়-অন্যায় বিচারের মানদণ্ড হবে এক ও অভিন্ন। কোন অবস্থাতেই ব্যক্তিগত অবস্থা ও মর্যাদাকে গণ্য করা হবে না। সমাজে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হলে ব্যক্তি সংযত হয়। সামাজিকভাবে স্বীকৃত ধারণার পরিপন্থী আচরণ করতে সাহস করে না। সামাজিক ন্যায়বিচার থাকলে মূল্যবোধ সংরক্ষিত ও সঞ্জীবিত হয়।

৩) শৃঙ্খলাবোধ জাগ্রত করা


শৃঙ্খলাবোধ সামাজিক মূল্যবোধের অন্যতম ভিত্তি। শৃঙ্খলা বলতে বুঝায় আইনের প্রতি আনুগত্য সৃষ্টির জন্য শাস্তিযোগ্য বিধানের দ্বারা প্রশিক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণ। অর্থাৎ প্রশিক্ষণের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত আচরণ শিক্ষা করা ও মেনে চলার মানসিকতাই শৃঙ্খলাবোধ। সময়মত কাজ করা, স্কুল, কলেজ, অফিস-আদালত, জনসভা, পারিবারিক জীবনব্যবস্থা প্রতিটি ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণ ও বিধি-বিধান মেনে চলা মূল্যবোধের মানদণ্ডে সমাজে আদর্শ বলে গৃহীত হয় এবং সামাজিক মূল্যবোধের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবে কাজ করে।

(৪) সহনশীলতা বজায় রাখা


সহনশীলতা বলতে বুঝায় সহ্য করার ইচ্ছা বা ক্ষমতা। নিজের ইচ্ছার বিপরীত বা অন্যের পৃথক মতকে সহ্য করা বা গুরুত্ব দেওয়ার মানসিকতাই সহনশীলতা। এই মনোভাবের অভাবে গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা সৃষ্টি করা সম্ভব নয়। আপোষ ও সমঝোতামূলক মনোভাব না থাকলে ঐক্যবদ্ধ সামাজিক জীবন গড়ে তোলা যায় না। মত বিনিময় এবং অবাধে মত বিনিময়ের সুযোগ থাকলে স্বচ্ছ অভিমত সৃষ্টি হয় এবং তা সমাজ জীবনকে পরিচ্ছন্ন ও পরিশুদ্ধ করে। সহনশীলতা ভাল গুণ হিসেবে সমাজে স্বীকৃত। সহনশীলতা সমাজে শান্তি ও সুস্থিতি প্রতিষ্ঠা করে। সহনশীলতা তাই সামাজিক মূল্যবোধের অন্যতম ভিত্তি।

সামাজিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিবারের গুরুত্বঃ

(১) ব্যক্তিগত সম্পত্তি

সমাজবিজ্ঞানীরা মনে করেন যে, সুদূর অতীতে মানুষ বন-জঙ্গল ও পাহাড়পর্বতের গুহায় বসবাস করত এবং ফলমূল ও লতাপাতা খেয়ে জীবন ধারণ করত। পরবর্তীতে মানুষ সমতল ভূমিতে বসবাস আরম্ভ করে এবং চাষাবাদের সাথে পরিচিত হয়। এই পর্যায়ে ব্যক্তিগত সম্পত্তির ধারণা সৃষ্টি হয়। ব্যক্তিগত সম্পত্তি ও চাষাবাদের ফসল সংরক্ষণের জন্য ঘরবাড়ী তৈরি এবং সংরক্ষিত অবস্থায় বসবাসের ফলে পরিবার সৃষ্টি হয়।

(২) সহযোগিতা

মানুষ একাই সব কাজ করতে পারে না। তাই তারা একে অপরকে সহযোগিতা করে। মিলে মিশে কাজ করার মাঝেই রয়েছে আনন্দ। পরস্পর নির্ভরশীলতা ও সঙ্গপ্রিয়তার কারণে মানুষ একে অপরকে সহযোগিতা করে এবং কাছাকাছি হয়। এর সাথে নারী-পুরুষের মধ্যে বিরাজমান যৌন আকর্ষণ তাদেরকে আরও নিকটবর্তী করে এবং পরিবার গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

(৩) সামাজিকতা

সামাজিকতার কারণে মানুষ সমাজবদ্ধ জীবন যাপন করে। একই কারণে আবার প্রত্যেক পরিবারের স্বতন্ত্র জীবন গড়ে উঠে। সামাজিকতার কারণে গোপনীয় ও নিয়ন্ত্রিত অবস্থায় পারিবারিক জীবনব্যবস্থা গড়ে উঠে।

(৪) সভ্যতাবোধ

আদিম যুগে মানুষ সভ্য জীবনের সন্ধান পায়নি। নিরলস প্রচেষ্টার মাধ্যমে সে সভ্য জীবন যাপনের উপকরণগুলো আয়ত্ত করে এবং এগুলো একান্তভাবে উপভোগের প্রেরণায় পৃথক পৃথক ভাবে নিয়ন্ত্রিত জীবন যাপন শুরু করে। পৃথকভাবে নিয়ন্ত্রিত জীবন ব্যবস্থা পরিবার গঠনে উৎসাহিত করে।

২০২২ এইচএসসি ৭ম সপ্তাহ সকল এসাইনমেন্ট উত্তর

৭ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট এর বিষয়উত্তর/সমাধান লিংক
ইংরেজি-১ম পত্র উত্তর লিংক
পদার্থবিজ্ঞান-২য় পত্র উত্তর লিংক
অর্থনীতি-২য় পত্র উত্তর লিংক
পৌরনীতি-২য় পত্র উত্তর লিংক
যুক্তিবিদ্যা-২য় পত্র উত্তর লিংক
হিসাববিজ্ঞান-২য় পত্র উত্তর লিংক
খাদ্য ও পুষ্টি -২য় পত্র উত্তর লিংক

২০২২ এইচএসসি ৮ম সপ্তাহ সকল এসাইনমেন্ট উত্তর

৮ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট এর বিষয়উত্তর/সমাধান লিংক
সমাজকর্ম উত্তর লিংক
সমাজবিজ্ঞান উত্তর লিংক
জীববিজ্ঞান উত্তর লিংক
বাংলা উত্তর লিংক
ভূগোল উত্তর লিংক
ফিন্যান্স ব্যাংকিং ও বীমা উত্তর লিংক

এইচএসসি বিএম সকল এসাইনমেন্ট উত্তর ৪র্থ সপ্তাহ

প্রিয় এইচএসসি ২০২১ সালের শিক্ষার্থী বন্ধুরা তোমাদের ৪র্থ সপ্তাহর এসাইনমেন্ট প্রকাশিত হয়েছে৷ নিচে ৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর লিংক দেওয়া হলো ভালো করে দেখে নিন।

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট এর বিষয়উত্তর/সমাধান লিংক
ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা-১উত্তর লিংক
হিসাব বিজ্ঞান নীতি ও প্রয়োগ-১উত্তর লিংক
হিসাব বিজ্ঞান নীতি ও প্রয়োগ-২উত্তর লিংক
মার্কেটিং নীতি ও প্রয়োগ-২উত্তর লিংক

এইচএসসি বিএম ৫ম সপ্তাহ সকল এসাইনমেন্ট উত্তর

প্রিয় এইচএসসি ২০২১ সালের শিক্ষার্থী বন্ধুরা তোমাদের ৫ম সপ্তাহর এসাইনমেন্ট প্রকাশিত হয়েছে৷ নিচে ৫ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর লিংক দেওয়া হলো ভালো করে দেখে নিন।

সপ্তাহের এসাইনমেন্ট এর বিষয়উত্তর/সমাধান লিংক
হিসাববিজ্ঞান নীতি ও প্রয়োগ-১উত্তর লিংক
কম্পিউটার অফিস এপ্লিকেশন-১উত্তর লিংক
HSC BM এইচএসসি বিএম এ্যাসাইনমেন্ট

৬ষ্ঠ সপ্তাহের সকল এসাইনমেন্ট উত্তর

Apply For jobs 24

Never miss a job opportunity

Get Apply For Jobs 24 on your phone
  • Access 1000s of jobs, on the go
  • Filtering to find the jobs that suit you
  • Apply directly and in real time
  • Applyforjobs24.Com Is A Fast Growing Bangladeshi Job Portal That Helps Jobseekers From All Sectors And Experience Levels, Such As Govt. And NGO. Jobs, Multi-National Jobs, Part-Time Jobs Part-Time Jobs (Especially Meant For..

    Read More About
    FOLLOW
    Download Mobile App