মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে – যুক্তরাষ্ট্র বলা হয় কেন, জানেন কি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে – যুক্তরাষ্ট্র বলা হয় কেন, জানেন কি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে – যুক্তরাষ্ট্র বলা হয় কেনঃ এই পোস্টটির মাধ্যমে আমার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পরিচিত হবো, এই দেশকে আমরা অনেকেই আমেরিকা নামেও অভিহিত করি এবং সেই সঙ্গে এই দেশের ৫০ টি রাজ্য, ১ টি জেলা ও ৫ টি স্বশাসিত অঞ্চলের নাম জানবো এবং একই সাথে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এই দেশের সকল রাষ্ট্রপতিদের নামও জানতে পারবো এই পোস্টের মাধ্যমে।

উত্তর আমেরিকা মহাদেশের বৃহৎ রাষ্ট্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ১৭৭৬ সালের জুলাই ব্রিটিশ উপনিবেশ স্বাধীনতা ঘোষণা করে এবং একত্রিত হয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নামে একটি প্রজাতন্ত্র গঠন করে। স্বাধীনতা ঘোষণার পরবর্তীতে বিভিন্ন সময়ে আরো ৩৭টি রাজ্য এদেশের সাথে যুক্ত হয়।

Country in North America

বর্তমানে এই দেশে ৫০টি রাজ্য এবং একটি স্বাধীন জেলা, ডিস্ট্রিক্ট অব কলম্বিয়া ও পাঁচটি শাসনাধীন অঞ্চল নিয়ে গঠিত। এজন্য যুক্তরাষ্ট্র বলা হয়। এই শাসনাধীন অঞ্চলগুলো হলো পশ্চিম ভারতীয় দ্বীপপুঞ্জের নিকটবর্তী পোর্টোরিকো দ্বীপ, প্রশান্ত মহাসাগরের ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ, পানামা খাল অঞ্চল, সামোয়া ও জয়াম টেরিটরি। এদেশের পতাকায় ৫০টি তারকা রয়েছে যা ৫০টি রাজ্যের প্রতিনিধিত্ব করছে এবং ১৩টি সমান্তরাল রেখা (লাল ও সাদা রংয়ের) রয়েছে যা দেশটির প্রতিষ্ঠাকালীন ১৩টি উপনিবেশকে নির্দেশ করে।

জর্জ ওয়াশিংটনের নেতৃত্বে ১৭৮৭ সালে ফিলাডেলফিয়ায় একটি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ফিলাডেলফিয়া সম্মেলনের প্রধান লক্ষ্য ছিল রাষ্ট্র সমবায়ের অনুচ্ছেদ সংশোধন। এ সম্মেলনে আমেরিকার একটি যুক্তরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এ উদ্দ্যেশ্যে একটি সংবিধান প্রণয়নের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। মার্কিন সংবিধান রচনার ক্ষেত্রে আর যাঁদের উদ্যোগ এবং ভূমিকা অপরিসীম তাঁরা হলেন জেমস ম্যাডিসন, আলেকজান্ডার হ্যামিলটন ও বেঞ্জামিন ফ্রালিন প্রমুখ। এ ছাড়াও কিছু কিছু প্রতিনিধি সংবিধান প্রণয়নে বিশেষ নৈপূণ্য ও দক্ষতার পরিচয় দেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কে কয়েকটি অঞ্চলে ভাগ করা যায়। যেমন-সমতল রাজ্যসমূহ, নিউ ইংল্যান্ড রাজ্যসমূহ, মধ্য আটলান্টিক রাজ্যসমূহ, দক্ষিণ-পূর্ব রাজ্যসমূহ, মধ্য পশ্চিম রাজ্যসমূহ, পার্বত্য রাজ্যসমূহ, দক্ষিণ-পশ্চিম রাজ্যসমূহ এবং সর্ব দক্ষিণের রাজ্যসমূহ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসি। প্রসিদ্ধ স্থানসমূহের মধ্যে অন্যতম ওয়াশিংটন ডিসি, নিউইয়র্ক, বোস্টন, শিকাগো, লস এঙ্গেলস, সানফ্রান্সিসকো প্রভৃতি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

উত্তর আটলান্টিক মহাসাগর ও উত্তর প্রশান্ত মহাসাগরের সীমান্তবর্তী কানাডা ও মেক্সিকোর মধ্যবর্তী অংশে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান। এর আয়তন প্রায় ৯৮,৩৩,৫১৭ বর্গকিলোমিটার। এটি আয়তনে বিশ্বে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে। এদেশের স্থল সীমানার দৈর্ঘ্য ১২,০৮৪ কিলোমিটার এবং উপকূল রেখার দৈর্ঘ্য ১৯,৯২৪ কিলোমিটার। জনসংখ্যার দিক দিয়ে চীন ও ভারতের পরই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান। এর জনসংখ্যা ৩২৩.৯ মিলিয়ন এবং বৃদ্ধির হার ০.৪% (পিআরবি, ২০১৬)। সারা বিশ্ব থেকে আগত অধিবাসীরা এদেশের জনসংখ্যার মধ্যে বিশেষ বৈচিত্র্যতা তৈরি করেছে। অভিবাসীরাই এদেশের সাংস্কৃতিক ভূ-দৃশ্য সৃষ্টি করেছে।

এদেশের ভূ-প্রকৃতি বৈচিত্র্যময়। এখানে রয়েছে পাহাড়, পর্বত এবং সুবিশাল সমভূমি। দেশটির বেশির ভাগ এলাকা নাতিশীতোষ্ণ জলবায়ুর অন্তর্গত। ভূ-প্রকৃতি, বায়ুপ্রবাহ, সমুদ্র স্রোত প্রভৃতির উপর ভিত্তি করে এখানকার জলবায়ুকে ৬টি বিশেষ অঞ্চলে ভাগ করা যায়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বের অন্যতম শিল্প প্রধান দেশ। এখানকার শিল্পগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ইস্পাত, মোটরগাড়ি, পেট্রোলিয়াম, টেলিযোগাযোগ, ইলেক্ট্রনিক্স, গ্রাহাজ নির্মাণ, সমরাস্ত্র, যন্ত্রপাতি, ঔষধ প্রভৃতি। খনিজ সম্পদগুলোর মধ্যে রয়েছে পেট্রোলিয়াম, প্রাকৃতিক গ্যাস, তেল, সোনা, রূপা, বক্সাইট, ইউরেনিয়াম প্রভৃতি। এদেশ খনিজ সম্পদ ও শিল্পে উন্নত হওয়ায় অর্থনৈতিকভাবে বিশ্বের অন্যতম শক্তি হিসেবে ভূমিকা পালন করে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজ্য সমূহের নাম

নং রাজ্য ১ -অরেগন ২ -আইওয়া ৩ -আইডাহো ৪ -আর্কানসাস ৫ -অ্যারিজোনা ৬ -অ্যালাব্যামা ৭ -আলাস্কা ৮ -ইলিনয় ৯ -ইন্ডিয়ানা ১০ -ইউটাহ ১১ -উইসকনসিন ১২ -ওহাইও ১৩ -ওকলাহোমা ১৪ -ওয়াইওম ১৫ -ওয়াশিংটন ১৬ -ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া ১৭ -কেন্টাকি ১৮ -ক্যানসাস ১৯ -ক্যালিফোর্নিয়া ২০ -কলোরাডো ২১ -কানেকটিকাট ২২ -ডেলাওয়্যার ২৩ -ফ্লোরিডা ২৪ -জর্জিয়া ২৫ -হাওয়াই ২৬ -লুইজিয়ানা ২৭ -মেইন ২৮ -মেরিল্যান্ড ২৯ -ম্যাসাচুসেট্‌স ৩০ -মিশিগান ৩১ -মিনেসোটা ৩২ -মিসিসিপি ৩৩-মিসৌরি ৩৪ -মন্টানা ৩৫- নেব্রাস্কা ৩৬ -নেভাডা ৩৭ -নিউ হ্যাম্পশায়ার ৩৮ -নিউ জার্সি ৩৯ -নিউ মেক্সিকো ৪০ -নিউ ইয়র্ক ৪১ -নর্থ ক্যারোলাইনা ৪২ -নর্থ ডাকোটা ৪৩ -পেন্সিলভেনিয়া ৪৪ -রোড আইল্যান্ড ৪৫ -সাউথ ক্যারোলাইনা ৪৬ -সাউথ ডাকোটা ৪৮ -টেক্সাস ৪৭ -টেনেসি ৪৯ -ভার্মন্ট ৫০ -ভার্জিনিয়া

যুক্তরাষ্ট্রের একটি জেলার নাম :- ডিস্ট্রিক্ট অব কলম্বিয়া

যুক্তরাষ্ট্রের শাসনাধীন অঞ্চল গুলো হলো :-

  • পশ্চিম ভারতীয় দ্বীপপুঞ্জের নিকটবর্তী পোর্টোরিকো দ্বীপ
  • প্রশান্ত মহাসাগরের ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ
  • পানামা খাল অঞ্চল
  • সামোয়া ও
  • জয়াম টেরিটরি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতিদের নাম

প্রথম থেকে বর্তমান দিন পর্যন্ত সকল রাষ্ট্রপতিদের নাম নীচে দেওয়া হল।

নং -রাষ্ট্রপতিদের ১ জর্জ ওয়াশিংটন ২ জন অ্যাডাম্‌স ৩ টমাস জেফারসন ৪ জেমস ম্যাডিসন ৫ জেমস মন্‌রো ৬ জন কুইন্সি অ্যাডাম্‌স ৭ অ্যান্ড্রু জ্যাকসন ৮ মার্টিন ভ্যান বিউরেন ৯ উইলিয়াম হেনরি হ্যারিসন ১০ জন টাইলার ১১ জেমস নক্স পোক ১২ জ্যাকারি টেইলর/ ১৩ মিলার্ড ফিল্‌মোর ১৪ ফ্রাংক্‌লিন পিয়ের্স ১৫ জেমস বিউকানান ১৬ আব্রাহাম লিংকন ১৭ অ্যান্ড্রু জনসন ১৮ ইউলিসিস এস গ্রান্ট ১৯ রাদারফোর্ড বি হেইজ ২০ জেমস গারফিল্ড ২১ চেস্টার এ আর্থার ২২ গ্রোভার ক্লিভ্‌ল্যান্ড ২৩ বেঞ্জামিন হ্যারিসন ২৪ গ্রোভার ক্লিভ্‌ল্যান্ড ২ ২৫ উইলিয়াম ম্যাকিন্‌লি ২৬ থিওডোর রুজ্‌ভেল্ট ২৭ উইলিয়াম হাওয়ার্ড ট্যাফ্‌ট্‌ ২৮ উড্রো উইল্‌সন ২৯ ওয়ারেন জি. হার্ডিং ৩০ ক্যালভিন কুলিজ ৩১ হার্বার্ট হুভার ৩২ ফ্রাংক্‌লিন ডি. রুজভেল্ট ৩৩ হ্যারি এস ট্রুম্যান ৩৪ ডোয়াইট ডি. আইজেনহাওয়ার ৩৫ জন এফ কেনেডি ৩৬ লিন্ডন বি. জনসন ৩৭ রিচার্ড নিক্সন ৩৮ জেরাল্ড ফোর্ড ৩৯ জিমি কার্টার ৪০ রোনাল্ড রেগান ৪১ জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশ ৪২ বিল ক্লিনটন ৪৩ জর্জ ডব্লিউ বুশ ৪৪ বারাক ওবামা ৪৫ ডোনাল্ড ট্রাম্প ৪৬ জো বাইডেন

About ApplyForJob

Check Also

বিশ্বের সকল দেশের নাম রাজধানী এবং মুদ্রার নাম

বিশ্বের সকল দেশের রাজধানীর নাম এবং মুদ্রার নাম

বিশ্বের সকল দেশের রাজধানীর নাম এবং মুদ্রার নাম বিশ্বের সকল দেশের রাজধানীর নাম এবং মুদ্রার …