৯ম শ্রেণি বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২ | ২য় সপ্তাহ

নবম শ্রেণির ২য় সপ্তাহের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর নবম শ্রেণি বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২ | ২য় সপ্তাহ আপনি খুব সহজেই আমাদের এখান থেকে নবম (৯ম) শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় (bangladesh o bisho porichoy) এসাইনমেন্ট এর উত্তর এবং প্রশ্ন ছবি এবং পিডিএফ ফাইল আকারে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন খুব সহজেই। ২০২২ সাল থেকে আপনাদের এসাইনমেন্ট তৈরি কার্যকর শুরু হয়েছে।

class 9 global studies assignment answer 2022

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা তোমরা কি তোমাদের ২য় সপ্তাহের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় (Bangladesh o bisho porichoy) এসাইনমেন্টের প্রশ্নগুলো দেখেছো? যদি না দেখে থাকো তহলে চলো আমরা নমুনা উত্তর দেখার আগে প্রশ্নগুলো টেবিলের পর দেখে নিই প্রশ্ন পর উত্তর/সমাধান ২০২২ এর।

বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
শ্রেণিনবম (৯ম)
বিষয়বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়
সপ্তাহ২য়
সাল২০২২

কোভিড -১৯ স্কুল দীর্ঘ বন্ধ ছিল।স্কুল বন্ধ থাকলেও অনলাইনে ক্লাস চলছিল। এবং এর সাথে একটি সংক্ষিপ্ত পাঠ্যক্রমে অনলাইন ২য় সপ্তাহের ইংরেজি অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর অব্যাহত রয়েছে। একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস সিলেবাসের পাশাপাশি ব্যবহারিক পরীক্ষার বিষয়বস্তু অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। প্রতিটি শিক্ষার্থী সমস্ত শিক্ষণ বিষয়ের পরিবর্তে একটি নির্বাচনী বিষয় পরীক্ষা সম্পন্ন করবে।

নবম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২

শিক্ষার্থীদের গত বছরের পরীক্ষার মতো সাধারণ ব্যবহারিক বই প্রস্তুত করতে হবে না। সংক্ষিপ্ত পাঠ্যক্রমের আলোকে যেসব বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা উল্লেখ করা হয়েছে। এই সমস্ত কাজগুলি ব্যবহারিকভাবে করতে হবে। সংক্ষিপ্ত পাঠ্যক্রমে প্রতিটি বিষয়ের শেষে ব্যবহারিক বিষয়বস্তু উল্লেখ করা হয়েছে। কোভিড -১৯ এর কারণে, দেশের সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ২০২০ সালের মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে। অতএব, সকল শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে, আপনার নিয়োগের ব্যবস্থা করা হয়েছে ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ থেকে। যাতে শিক্ষার্থীরা পড়ার সঙ্গে যুক্ত হতে পারে।

আমাদের আরও পেজ দেখুন

class 9 Bangladesh Global Studies assignment answer 2022 2st week

করোনাভাইরাসের কারণে এই বছর কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বার্ষিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। সুতরাং প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কথা বিবেচনা করে, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে অ্যাসাইনমেন্ট এর উপর ভিত্তি করে পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ করা হবে।

বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস বিষয়ক একটি নিবন্ধন রচনা করতে হবে। এ নিবন্ধে উল্লেখ করতে হবে:

১। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের পটভূমি ও তাৎপর্য

২। ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন

৩। ঐতিহাসিক ছয় দফার গুরুত্ব

৪। ৭ই মার্চের ভাষণের পুরুত্ব

বাংলাদেশের জুলাই মাসের সকাল ১০টার সময়ে জাপান, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয় কর। বাংলাদেশের সাথে উল্লিখিত দেশসমূহের স্থানীয় সময় ও ঋতুগত পার্থক্যের কারণ ব্যাখ্যা কর।

পৃথিবীর সময় ও স্থান নির্ণয়ের জন্য দ্রাঘিমা রেখার প্রয়োজন হয়। পুরো পৃথিবী 360 ডিগ্রী এর অন্তর্ভুক্ত। এই 360˚ কে কেন্দ্র করে গ্রিনিচ মান মন্দির কে ০ ডিগ্রি ধরে ১৯৮০ সালে সমগ্র পৃথিবীর জন্য একটি আন্তর্জাতিক সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। এই 360˚ থেকে কোনো দেশের দ্রাঘিমা জেনে সেদেশের সময় নির্ধারণ করা যায়। তেমনিভাবে কোন দেশের জিএমটি সময় জেনে দ্রাঘিমার সাহায্যে সে দেশ কোথায় অবস্থিত তা জানা যায়। তাই বলা যায় সময়ের পার্থক্য এর ক্ষেত্রে বা সময় নির্ণয়ের ক্ষেত্রে দ্রাঘিমা রেখার গুরুত্ব অপরিসীম।

যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও কানাডার স্থানীয় সময় নির্ধারণ:

কোন দেশের সময়ের পার্থক্যের জন্য দ্রাঘিমারেখা অথবা আন্তর্জাতিক প্রমাণ সময়ের প্রয়োজন হয়। আর পৃথিবীতে একটি স্বীকৃত প্রমাণ সময় হল জিএমটি (GMT- Greenwich Mean Time Zone) অর্থাৎ গ্রিনিচ মান মন্দির কে ০ ডিগ্রী ধরে যে সময় নির্ধারণ করা হয়। নিচে উল্লেখিত দেশগুলির দ্রাঘিমা রেখার সাহায্যে তাদের সময় বের করা হলো –
আমরা জানি,
বাংলাদেশে = ৯০ ডিগ্রি দ্রাঘিমা রেখায় অবস্থিত
যুক্তরাষ্ট্র = -৬০ ডিগ্রী দ্রাঘিমা রেখা অবস্থিত
কানাডা = -৬০ ডিগ্রি দ্রাঘিমা রেখায় অবস্থিত
জাপান = ১৩৫ ডিগ্রি দ্রাঘিমা রেখায় অবস্থিত।

সুতরাং, উল্লেখিত ডিগ্রী দ্রাঘিমা থেকে জিএমটি সময় বের করলে আমরা জানতে পারব বাংলাদেশে যখন দশটা বাজে তখন অন্য দেশগুলোর সময় কত।
যুক্তরাষ্ট্র = -৬০ ডিগ্রী
আমরা জানি,
১˚ = ৪ মিনিট
সুতরাং, ৬০˚ = ৬০ X ৪
বা, ২৪০ মিনিট।

আবার, ২৪০÷৬০ = ৪ ঘণ্টা (৬০ মিনিট = ১ ঘণ্টা)
সুতরাং, যুক্তরাষ্ট্র জিএমটি – ৪ ঘণ্টা পিছিয়ে (যেহেতু -৬০˚ ছিল, তাই ‘-‘ মাইনাস হবে)।

বাংলাদেশ =৯০˚
৯০ X ৪ = ৩৬০ (১˚=৪ মিনিট)
আবার,
৩৬০÷৬০=৬ ঘণ্টা (৬০ মিনিট=১ ঘণ্টা)
অর্থাৎ, বাংলাদেশ জিএমটি ৬ ঘণ্টা এগিয়ে।
সুতরাং, জিএমটি ঘড়ি অনুযায়ী বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১০ ঘণ্টা আগে। তাই এটা প্রমাণিত যে, বাংলাদেশে জুলাই মাসে যখন সকাল ১০ টা বাজে তখন যুক্তরাষ্ট্রে রাত ১২ টা বাজে।

কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের দ্রাঘিমা রেখা সমান হওয়ায় বলা যায়, কানাডাতেও রাত ১২ টা বাজে।

জাপান =১৩৫˚
১৩৫ X ৪=৫৪০ মিনিট (১ডিগ্রি =৪ মিনিট)
আবার,
৫৪০÷৬০=৯ ঘণ্টা

অর্থাৎ, জাপান জিএমটি অনুযায়ী ৯ ঘণ্টা এগিয়ে।
যেহেতু, বাংলাদেশ জিএমটি থেকে ৬ ঘণ্টা এগিয়ে অর্থাৎ জাপান বাংলাদেশ থেকে ৩ ঘণ্টা এগিয়ে, তাই বাংলাদেশে যখন জুলাই মাসের সকাল ১০ টা, তখন জাপানের সময় দুপুর ১টা।

স্থানীয় সময়ের পার্থক্যের কারণ :

পৃথিবীটা গোলাকার হওয়ার কারণে সূর্যের আলো পৃথিবীর চারপাশে সমানভাবে পড়ে না। যার ফলে পৃথিবীর কোথাও সকাল হলে, অন্য পাশে রাত। আবার কোথাও ভোর হলে, অন্য পাশে সন্ধ্যা হয়। তাই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশগুলোতে একদেশে ভোর পাঁচটা হলে, অন্য দেশের সন্ধ্যা ছয়টা।

আবার এক দেশে সকাল আটটা হলে, আরেক দেশে সন্ধ্যা নেমে আসে। আর পৃথিবীর এই রাতদিন হওয়ার কারণ হল আহ্নিক গতি। যদি পৃথিবীর আহ্নিক গতি না থাকতো, তাহলে দেখা যেত পৃথিবীতে এক পাশে সর্বদা দিন থাকতো, আরেক পাশে রাত থাকতো।

তাই বুঝা যায়, এই আহ্নিক গতির কারণে স্থানীয় সময়ের পার্থক্য হয়ে থাকে।

ঋতুর পার্থক্যের কারণ :
সময়ের পার্থক্য যেমন আহ্নিক গতির কারণে হয়ে থাকে, তেমনই ঋতুর পার্থক্য হওয়ার কারণ হলো বার্ষিক গতি। পৃথিবী নিজ অক্ষে অবিরাম ঘুরতে ঘুরতে নির্দিষ্ট কক্ষপথে সূর্যের চারপাশে একবার পরিক্রম করার নাম বার্ষিক গতি।

নিচে বিভিন্ন দেশের ঋতুর পার্থক্য হওয়ার কারণ তুলে ধরা হলো-

কোন স্থানে দিবাভাগের পরিমাণ রাতের পরিমাণ হতে দীর্ঘ হলে, সেই স্থানে বায়ুমণ্ডল অধিকতর উষ্ণ থাকে। যার ফলে ভূপৃষ্ঠের সর্বত্র তাপের তারতম্য হয় এবং ঋতুর পরিবর্তন ঘটে।
সূর্যকে পরিক্রমণ কাল পৃথিবীর সব সময় ৬৬.৫° কোণে হেলে ঘুরতে থাকে। যার কারণে বিভিন্ন স্থানে সূর্য রশ্মির পতনে কৌণিক তারতম্য ঘটে এবং ঋতু পরিবর্তন হয়।
সূর্য ও পৃথিবীর দূরত্বের বৃদ্ধির ফলে সূর্যতাপে তারতম্য হয় এবং ঋতুর পরিবর্তন ঘটে। এই সকল কারণে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের ঋতুর পার্থক্য দেখা দেয়।
পৃথিবীতে বহু দেশ রয়েছে। এই দেশগুলো পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে রয়েছে এবং এদের সময় এর ভিন্নতা রয়েছে। পাশাপাশি সকল দেশে ভিন্ন ভিন্ন মৌসুম হয়ে থাকে।

হয়তোবা অনেক দেশে গ্রীষ্মকাল থাকে। কিন্তু সে গ্রীষ্মকালের মধ্যেও পার্থক্য থাকে। কোথাও বা বর্ষাকাল হয়। আবার কোথাও বা একদমই বৃষ্টি হয় না অথবা নাতিশীতোষ্ণ হয়। আবার কোথাওবা বরফ শীতল হয়ে থাকে।

৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর

সকল বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন আজ প্রকাশিত হয়েছে। তাই এই পোস্টটি সকল শিক্ষার্থীদের জন্য তৈরি করা হয়েছে যারা অনলাইনে তাদের অ্যাসাইনমেন্টের প্রশ্ন এবং উত্তর খুঁজছেন। সুতরাং আপনি আমাদের কাছ থেকে অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্নের উত্তরগুলি সহজেই ডাউনলোড করতে পারেন। চলতি বছরের মার্চ মাসে এটি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগে প্রকাশিত হয়েছিল। এর ধারাবাহিকতায় ২য় নিয়োগ প্রকাশিত হয়েছে।

৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেনীর সকল এসাইনমেন্ট উত্তর ২য় সপ্তাহ

প্রিয় ২০২২ সালের ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী বন্ধুরা তোমাদের ২য় সপ্তাহর এসাইনমেন্ট প্রকাশিত হয়েছে৷ নিচে ২য় সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর লিংক দেওয়া হলো ভালো করে দেখে নিন।

২য় সপ্তাহের এসাইনমেন্ট এর বিষয় উত্তর/সমাধান লিংক
৬ষ্ঠ শ্রেনীর ইংরেজি উত্তর লিংক
৭ম শ্রেনীর ইংরেজি উত্তর লিংক
৮ম শ্রেনীর ইংরেজি উত্তর লিংক
৯ম শ্রেনীর ইংরেজি উত্তর লিংক
১০ম শ্রেনীর ইংরেজি উত্তর লিংক
৬ষ্ঠ শ্রেনীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় উত্তর লিংক
৭ম শ্রেনীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় উত্তর লিংক
৮ম শ্রেনীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় উত্তর লিংক
৯ম শ্রেনীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় উত্তর লিংক
১০ম শ্রেনীর বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় উত্তর লিংক
১০ম শ্রেনীর বাংলা ২য় পত্র উত্তর লিংক
৯ম শ্রেনীর বিজ্ঞান উত্তর লিংক
১০ম শ্রেনীর বিজ্ঞান উত্তর লিংক

About ApplyForJob

Check Also

৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেনীর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের সকল এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২

৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেনীর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের সকল এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২

৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেনীর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের সকল এসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২ ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেনীর ৬ষ্ঠ …