প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ এর মধ্যে

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে: প্রাইমারি শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান আগামী ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ এর মধ্যে কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী জমাদান করতে হবে । যারা প্রাথমিক শিক্ষ পদে নির্বাচিত হয়েছেন তাদেরকে পোস্টটি বিস্তারিত দেখার জন্য বলা হলো । আশাকরি অনেক তথ্য এখান থেকে আপনারা নিতে পারবেন যা আপনাকে অনেকভাবে সাহায্য করতে পারে । অনেকে জানেন না যে এখন তাদেরকে কি কি করতে হবে , কোন কোন কাগজপত্র অফিসে দিতে হবে , কোন অফিসে জমা দিতে হবে, ইত্যাদি কাজগুলো সম্পর্কে এখানে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো ।

৩১ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখের মধ্যে কাগজপত্র জমাদান

উল্লেখ্য, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের ফলাফল ২০২২ (চূড়ান্ত) ১৪ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখে প্রকাশিত হয়েছে। ১৪ ডিসেম্বর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (DPE) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা-২০২০ এর ফলাফল প্রকাশে প্রকৃত শূন্যপদ পূরণের অপরিহার্যতা যাচাই-বাছাই পূর্বক চুড়ান্ত করে এ পরীক্ষার ফলাফল ১৪ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখ দুপুর ২টার দিকে প্রকাশ করা হয়েছে। জেলা ভিত্তিক ফলাফল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট

ও ডিপিই এর ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে । প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে আরো দেখুন নিচে:

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমা দিতে হবে ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখের মধ্যে। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে ৩৭ হাজার ৫৭৪ প্রার্থীকে দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে নির্বাচিত করা হয়েছে। নির্বাচিত প্রার্থীদের জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। নির্বাচিত প্রার্থীদের স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার সনদ ও ডোপ টেস্ট রিপোর্ট, পূরণকৃত পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে জমা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে ।

প্রার্থীদের লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৯ অনুসরণ করে উপজেলাভিত্তিক মেধাক্রম অনুযায়ী নিয়োগের জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করে এ তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। এ তালিকা ছাড়া কোনো অপেক্ষমাণ তালিকা/প্যানেল করা হবে না। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (পলিসি ও অপারেশন) মনীষ চাকমা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব নির্দেশনার কথা বলা হয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে: প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত কোনো প্রার্থী কোনো প্রকার ভুল তথ্য প্রদান করলে কিংবা কোনো তথ্য গোপন করেছেন মর্মে প্রতীয়মান/প্রমাণিত হলে কর্তৃপক্ষ তাঁর ফলাফল বা নির্বাচন বাতিল করতে পারবে।

ডোপ টেস্ট জমা দিতে হবে

  • নির্দেশনায় বলা হয়েছে, প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে নির্বাচিত প্রার্থীকে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সংশ্লিষ্ট জেলার সিভিল সার্জন প্রদত্ত স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার সনদ/প্রত্যয়ন ও ডোপ টেস্ট রিপোর্ট সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে জমা দিতে হবে। স্বাস্থ্যগত সনদে প্রার্থী কোনো দৈহিক বৈকল্যে ভুগছেন কিংবা উল্লিখিত পদে নিয়োগযোগ্য নয় মর্মে উল্লেখ থাকলে তিনি নিয়োগের জন্য বিবেচিত হবেন না।
  • প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে নির্বাচিত প্রার্থীকে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সংশ্লিষ্ট জেলার সিভিল সার্জন প্রদত্ত স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার সনদ/প্রত্যয়ন ও ডোপ টেস্ট রিপোর্ট সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে জমা দিতে হবে।
  • এ ছাড়া নির্বাচিত প্রার্থীদের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে পরিচিতি প্রতিপাদন ও সব নথি যাচাইয়ের জন্য সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে সব মূল সনদ (সব সনদের মূল কপি, জাতীয় পরিচয়পত্র, তিন কপি পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম যথাযথভাবে পূরণকৃত), সিভিল সার্জন কর্তৃক প্রদত্ত স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার সনদ/প্রত্যয়ন এবং ডোপ টেস্ট রিপোর্ট, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কোটার সনদসহ স্বশরীরে উপস্থিত হতে হবে।
  • নির্বাচিত প্রার্থীদের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে তিন সেট পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম যথাযথভাবে পূরণ করে জমা দিতে হবে। কোনো প্রার্থীর পুলিশ ভেরিফিকেশন রিপোর্টে পূর্বকার্যকলাপ সন্তোষজনক না হলে কিংবা নাশকতা/সন্ত্রাসী/জঙ্গি কার্যক্রমে সংশ্লিষ্ট কিংবা রাষ্ট্রবিরোধী কোনো কার্যক্রমে লিপ্ত ছিলেন মর্মে প্রতীয়মান হলে তিনি চাকরিতে অনুপযুক্ত হবেন।
  • প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার সনদ প্রদান, সব মূল সনদসহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে উপস্থিত হতে না পারলে এবং পূরণকৃত পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম প্রদানে ব্যর্থ হলে পরবর্তী সময়ে তিনি নিয়োগপত্র পাওয়ার জন্য বিবেচিত হবেন না।

যেসকল কাগজপত্র জমা দিতে হবে

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ প্রার্থীদের নিজ নিজ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে উপস্থিত হতে হবে।

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে- নির্বাচিত প্রার্থীদের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে পরিচিতি প্রতিপাদন ও সব নথি যাচাইয়ের জন্য সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে সব মূল সনদ (সব সনদের মূল কপি, জাতীয় পরিচয়পত্র, ৩ কপি পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম যথাযথভাবে পূরণকৃত), সিভিল সার্জন কর্তৃক প্রদত্ত স্বাস্থ্যগত উপযুক্ততার সনদ/প্রত্যয়ন এবং ডোপ টেস্ট রিপোর্ট, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কোটার সনদসহ সশরীর উপস্থিত হতে হবে।

প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ রেজাল্ট যেভাবে জানা যাবে

DPE TEACHER ALL DISTRICTS RESULT 2022 (PDF download link) : Click Here

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে- যারা প্রাথমিক শিক্ষক পদে উত্তীর্ণ হয়েছেন , তাঁদের মুঠোফোনেও ফলাফল এসএমএস করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রমের ইতিহাসে এটিই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি। ২০২০ সালের ২৫ অক্টোবর অনলাইনে আবেদন শুরু হয়। আবেদন করেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ প্রার্থী। নিয়োগে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা তিন ধাপে নেওয়া হলেও চূড়ান্ত ফলাফল একবারেই প্রকাশ করা হয়েছে। প্রথম ধাপের লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন ৪০ হাজার ৮৬২ জন, দ্বিতীয় ধাপে ৫৩ হাজার ৫৯৫ এবং তৃতীয় ধাপে ৫৭ হাজার ৩৬৮ জন।

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে
প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মোট শিক্ষক পদ ৩৭ হাজার+

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের ফল ১৪ ডিসেম্বর প্রকাশ করা হয়েছে । এ ক্ষেত্রে আগে ৩২ হাজার শিক্ষক নেওয়ার কথা থাকলেও নতুন করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আরো পাঁচ হাজারের মতো পদ বৃদ্ধির। শূন্যপদের সংখ্যা আরো বেশি। ২০২২ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত শূন্যপদ ধরে এবার নিয়োগ দেওয়া হবে। প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে এসব জানিয়েছেন ।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ গণমাধ্যমকে জানান, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শূন্য পদের সংখ্যা অনেক আছে। তবে এই নিয়োগে পাঁচ হাজার পদ বাড়িয়ে মোট ৩৭ হাজারেরও কিছু বেশি শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছয় হাজার শিক্ষক প্রতিবছর অবসরে যান। এবার প্রথম বুয়েটের সহায়তায় উচ্চ মানের প্রযুক্তি ব্যবহার করে নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হচ্ছে।

সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ২০২০ সালের ২০ অক্টোবর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। করোনা মহামারির কারণে সে সময় পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। চলতি বছর লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া শেষ হয়েছে। প্রথম ধাপের লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন ৪০ হাজার ৮৬২ জন, দ্বিতীয় ধাপে ৫৩ হাজার ৫৯৫ এবং তৃতীয় ধাপে ৫৭ হাজার ৩৬৮ জন।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী নির্বাচিত প্রার্থীদের যেসব নিয়ম মানতে হবে

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে: লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার ভিত্তিতে ৩৭ হাজার ৫৭৪ জন প্রার্থীকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে নির্বাচন করা হয়েছে।

ক. প্রার্থীদের লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ ২০১৯ অনুসরণপূর্বক উপজেলাভিত্তিক মেধাক্রম অনুযায়ী নিয়োগের জন্য প্রাথমিকভাবে প্রার্থী নির্বাচন করে তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। কোনো অপেক্ষমাণ তালিকা বা প্যানেল করা হবে না।

খ. প্রকাশিত ফলে কোনো প্রকার ভুল-ভ্রান্তি বা ত্রুটি-বিচ্যুতি অথবা মুদ্রণজনিত ত্রুটি ইত্যাদি পরিলক্ষিত হলে তা সংশোধ প্রয়োজনবোধে ফলাফল বাতিল করার এখতিয়ার কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে নির্বাচিত এসব প্রার্থীদের করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। উপরের আলোচনায় বিষয়গুলো প্রাথমিক শিক্ষক পদে নির্বাচিতদের কাগজপত্র জমাদান প্রসঙ্গে আপনাদের জানানো হয়েছে । আপনারা ভালোভাবে দেখে নিতে পারেন এবং অফিস আদেশ অনুযায়ী সেভাবেই কাগজপত্র জমাদান করবেন । আপনাদের সকলের জন্য শুভ কামনা রইলো ।

About Apply For Jobs

Check Also

সরকারি নার্সিং ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২২-২০২৩ যোগ্যতা ও অনলাইন আবেদন

সরকারি নার্সিং ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২২-২০২৩ যোগ্যতা ও অনলাইন আবেদন

সরকারি নার্সিং ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২২-২০২৩ সরকারি নার্সিং ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২২-২০২৩ যোগ্যতা ও অনলাইন আবেদন: -Nasing …

Leave a Reply